রাজধানীর দক্ষিণখান এলাকার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী হেলাল উদ্দিনের তিন খণ্ড লা’শ তিন স্থান থেকে উ’দ্ধারের ঘ’টনার মা’মলার মূ’ল আসামী রুপম স’রকারকে গ্রে’প্তার করেছে ঢাকা মহানগর পু’লিশের (ডিএমপি) গো’য়েন্দা শাখা (ডি’বি)। গতকাল রোববার দিবাগত রাতে তাকে গ্রে’প্তার করা হয় বলে জানিয়েছে ডিএমপি।

আজ সোমবার সকালে ডিএমপি থেকে পাঠানো এক ক্ষুদে বার্তায় এ ত’থ্য জানানো হয়। ক্ষুদে বার্তায় জানানো হয়, রাজধানীর দক্ষিণখান থানা এলাকায় তিন টুকরো লা’শ উ’দ্ধারের ঘ’টনার মূ’ল আসামীকে গ্রে’প্তার করেছে ডি’বি। আজ বেলা সাড়ে ১১টায় ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে এ ব্যাপারে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

ডি’বির একটি সূত্র জানায়, গ্রে’প্তারকৃত মূ’ল আ’সামির নাম রুপম স’রকার। তবে এ ঘ’টনায় বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে প্রেমবাগান ও উত্তরার আবদুল্লাহপুর এলাকায় অ’ভিযান চা’লিয়ে শাহিনা আক্তার ও তার মে’য়ে মনি স’রকার নামের এই দুজনকে গ্রে’প্তার করে ডি’বি উত্তরের বিমাবন্দরের জোনাল টিম। গ্রে’প্তার ব্যক্তিরা শুক্রবার আ’দালতে স্বী’কারোক্তিমূ’লক জবানব’ন্দি দিয়েছেন। গ্রে’প্তারের সময় তাঁদের কাছ থেকে ৩৩ হাজার টাকাও উ’দ্ধার করা হয়।

উল্লেখ্য, গত ১৪ জুন ঢাকার দক্ষিণখান হতে নিখোঁজের পর হেলাল উদ্দিন নামের এক যুবকের ক্ষ’তবিক্ষ’ত ম’রদে’হের তিন খণ্ড তিন জায়গা থেকে উ’দ্ধার করে পু’লিশ। নি’হতের বড় ভাই হুজায়ফা হোসেন বা’দী হয়ে দক্ষিণখান থানায় একটি মা’মলা করেন। মা’মলা নম্বর ১২। কোরানে হাফেজ হেলালের বাড়ি পিরোজপুর জে’লার নেছারাবাদ থানার দইহাড়ি গ্রামে। মাদ্রাসায় পড়াশুনার পাশাপাশি তিনি দক্ষিণখানের আজমপুরে মোবাইল ফোন রিচার্জের ব্যবসা করতেন।

ঢাকা মহানগর গো’য়েন্দা পু’লিশের (ডি’বি) উত্তর বিভাগের উপ-কমিশনার মশিউর রহমান এনটিভি অনলাইনকে বলেছিলেন, ‘গত ১৫ জুন সোমবার দক্ষিণখান থানার মুক্তিযোদ্ধা সড়কের বটতলা এলাকা থেকে একটি অ’জ্ঞাত লা’শের নাভি থেকে নিচের অংশ এবং একই দিন নাভি থেকে গ’লা পর্যন্ত অংশ বিমানবন্দর থানা এলাকার হাজী ক্যাম্প সংলগ্ন ঝোপের মধ্যে থেকে পু’লিশ উ’দ্ধার করে।

পরে জাতীয় পরিচয়পত্রের সার্ভারের স’ঙ্গে আ’ঙ্গুলের ছাপ মিলিয়ে তার পরিচয় হেলাল উদ্দিন বলে সনাক্ত করা হয়। পরদিন ১৬ জুন মধ্যরাতে দক্ষিণ খান থানার গাওয়াইর ভূঁইয়া বাড়ি এলাকার কবরস্থান সংলগ্ন ডোবা থেকে হেলালের খন্ডিত মাথা উ’দ্ধার করে পু’লিশ।

মশিউর রহমান বলেন, ‘লা’শের টুকরো পাওয়া স্থানের আশপাশের বিভিন্ন এলাকার ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরার (সিসিটিভি) ফুটেজে থেকে হ’ত্যাকাণ্ডে জ’ড়িত স’ন্দে’হ চার্লস রূপম স’রকার নামে এক খ্রিস্টান যুবককে সনাক্ত করে।

তাকে লা’শের খন্ডিত অংশের বস্তাটি রিকশায় করে নিয়ে ঝোঁপে ফে’লে দিতে দেখা যায়। উত্তরার প্রেম বাগান ও আব্দুল্লাহপুর এলাকা থেকে প্রথমে মনি স’রকার ও পরে তার মা রাশিদাকে গ্রে’প্তার করে। তারা পু’লিশের জি’জ্ঞাসাবাদে ব্যবসার টাকা লু’টের জন্য হ’ত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here