আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডরীর সদস্য ও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের করোনাভাইরাস ধরা পড়েছিল গত সপ্তাহে। এরপর থেকে ঢাকার একটি হাসপাতালে আছেন তিনি। তবে অবস্থা অপরিবর্তিত আছে এখন পর্যন্ত। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তিনি লাইফ সাপোর্টে ছিলেন। তবে আবারও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিমের করোনাভাইরাস টেস্ট করা হলে সেখানে ফলাফল নেগেটিভ এসেছে বলে জানা গেছে। -বিবিসি বাংলা।

শ’রীরে ক’রোনা, নির্দ্বিধায় ফার্মেসি চালাচ্ছেন রো’গী!
শ’রীরে প্রা’ণঘা’তী করোনা ভাই’রাস। অথচ নির্দ্বিধায় পরিচালনা করছেন নিজের ও’ষুধের দোকান। ঘ’টনাটি ঘটেছে কেরানীগঞ্জের জিনজিরা ইউনিয়নের ছাটগাও এলাকায়। ক’রোনা পজেটিভ হওয়ার কিছুদিন যেতে না যেতেই ফার্মেসি খুলে বসেছেন মো: শফিক নামে এক ও’ষুধ ব্যবসায়ী। তার ও’ষুধের দোকানটি জিনজিরা ইউনিয়নের ছাটগাও এলাকায়।

এলাকার সাজেদা হাসপাতালের সামনে গিয়ে সরেজমিনে দেখা যায়, সাজেদা হাসপাতালের পাশেই শফিক ফার্মেসি নামে একটি ও’ষুধের দোকান চালাচ্ছেন মো: শফিক। আশপাশের কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ঈদের কয়েকদিন আগে দোকানটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। এরপর ১ তারিখ থেকে দোকানটি পুনরায় চালু করা হয়, মাঝে কিছুদিন বন্ধ ছিল। তবে কেন বন্ধ করা ছিল তারা বলতে পারেন না।

খবর নিয়ে জানা যায়, ২১ মে করোনা পজেটিভ হন মো. শফিক । কিছুদিন আগে তার স্ত্রীরও ক’রোনা পজিটিভ আসে। এরপর ২২ তারিখ থেকে দোকান বন্ধ রাখার পর আবার ১ জুন থেকে দোকান চালু করেন তিনি। সাধারণত করোনা পজিটিভ হওয়ার ১৪ দিন পর দ্বিতীয়বার পরীক্ষা করাতে হয়। এর সাতদিন পর তৃতীয়বার পরীক্ষা করাতে হয়।

এরপর চিকিৎসকের অনুমতি নিয়ে বের হওয়ার নিয়ম রয়েছে। এ বি’ষয়ে মো. শফিকের সঙ্গে কথা হলে প্রথমে তিনি বলেন, ‘উপজে’লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে আমার নেগেটিভ ফলাফল এসেছে বলা হয়েছে।’ উপজে’লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগাযোগ করা হলে জানানো হয়, মো. শফিকের দ্বিতীয়বার করোনা পরীক্ষাই করানোই হয়নি।

তাকে কিছু বলা হয়নি। পরবর্তীতে মো. শফিক বলেন, ‘আমার ভু’ল হয়ে গেছে আমি ক্ষমাপ্রার্থী।’ এ বি’ষয়ে কেরানীগঞ্জ উপজে’লা নির্বাহী কর্মকর্তা অমিত দেবনাথ জানান, করোনা পজেটিভ হলে অন্তত ১৪ দিন তো অবশ্যই বাসায় থাকতে হবে। এবং দ্বিতীয় বার টেস্ট করিয়ে রেজাল্ট নেগেটিভ আসার আগে বের হওয়া যাবে না। যেহেতু তিনি আইন অমান্য করেছেন তার বি’রুদ্ধে অবশ্যই দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here